মুখের ত্বকের সমস্যা সমাধান
মুখের ত্বকের সমস্যা সমাধান করুন ২ মিনিটে

মুখে ব্রণ তোলার ভাব সরিয়ে ফেলা বা মুখে হারিয়ে যাওয়া জেলার ফিরিয়ে আনতে ফেস মাস্ক্র জুড়ি নেই। সব রকম ক্রিম সাবান যখন মরে যায় তখন ভরসা শুধু ফেইস মার্কস যে কোন প্রকার প্রফেসনাল ফেসিয়াল আর্টিস্ট ও তাই বেছে নেন এই ফেস মাস্ককে। তবে ত্বক বুঝে বেছে নিতে হয় ফেইস মাস্ক।

তা না হলে আপনার সব রকম পরিশ্রম বেহেশতে যেতে পারে। তাই কি ধরনের ফেস মাক্স বাঁচবেন তা ঠিক করতে প্রথমে বুঝে নিন আপনার ত্বক ঠিক কি রকম।

১) তৈলাক্ত ত্বক

মুখের ত্বক তৈলাক্ত ত্বক হলে সহজে ব্রণ হয় এমনকি বাইরের পরিবেশ এস ধুলাবালি সহজে আটকে যায় আপনার মুখে। তাই আপনার ত্বক যদি তৈলাক্ত হয় তবে আপনাকে নিতে হবে তুলনায় বেশি সুরক্ষা। তৈলাক্ত ত্বকের বিউটিশিয়ানরা পরামর্শ দেন মাটির মাছ বেছে নিতে। মাটির মাক্স এই কারণেই যেহেতু এটা সহজে পাওয়া যায় এর জোগাড় করতে আপনাকে বেশি খাটতে হয় না। মাটির মারকস সহজে আপনার মুখের ব্রণ, অমান্য মৃত কোষ তুলে নিয়ে আসে।মুখের ত্বক এর ভিতরে রক্ত চলাচল সচেতন রাখে । ত্বককে তৈলাক্ত হওয়া থেকে রক্ষা করে।তবে বেশি পরিমাণে মাটির মাস ব্যবহার করলে মুখের ত্বক শুষ্ক হয়ে যেতে পারে । আমাদের দেশে মুলতানি মাটি প্রাচীনকাল থেকে ব্যবহার করে আসছে এ ধরনের সমস্যা মেটাতে। তাই এক্ষেত্রে একই সমাধান মুলতানি মাটির সঙ্গে পানি ও কয়েক ফোঁটা লেবুর রস দিয়ে আধাঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন। তারপর ব্যবহার করুন আপনার মুখে তবে এই মাক সপ্তাহে দুই থেকে তিন বারের বেশি ব্যবহার করবেন না। শুধু মুলতানি মাটি নয় বাজারে আরো তিন চার রকমের মাটির মাছ পাওয়া যায় যেগুলো ছবি তোলার থকথকে জন্য যথেষ্ট কার্যকরী। তবে তবে কিছু নির্দিষ্ট ফল দিয়ে তৈরি মাছ আপনার তৈলাক্ত ত্বকের উপকার খুব ভালো দেবে। যেমন কলা আর মধুর মিশ্রণ তৈরি করে মার্কস আপনার মুখের ত্বক থেকে তো লাগতো ভাব দূর করে রাখে এবং ত্বকের জন্য ভাব ধরে রাখে। আপনি নিজে ফল থেকে মাস্ক তৈরি করতে পারেন। বাজারে স্বল্পমূল্যের মার্কস ক্রিম যেগুলো ব্যবহার করার পদ্ধতি খুব সহজ আর দাম আপনার সাধ্যের মধ্যেই থাকে অধিকাংশ ক্ষেত্রে।

২) শুষ্ক ত্বক

শুষ্ক ত্বকের জন্য রয়েছে সমাধান এক্ষেত্রে যাদের শুষ্ক ত্বক তারা চোখ বুজে বেছে নিন এলোভেরা কে। ত্বকের জলীয় ভাব ধরে রাখার অ্যালোভেরা যেমন জুড়ি নেই। তেমনি একটি শুষ্ক ত্বকের ফেস মাস্ক তৈরি দারুন কাজে দেয় ভালো ফলাফল পেতে হলে অ্যালোভেরা সঙ্গে মিশিয়ে নিন শসার টুকরো। শসা গোল গোল করে কেটে মিক্সার গ্রাইন্ডারে শসা আর অ্যালোভেরা মিশিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। এরপর মুখে লাগিয়ে 20 থেকে 30 মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর আপনার মুখ ভালো ঠান্ডা পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এছাড়াও নারকেল তেলের দুধের সঙ্গে মাখন এর মিশ্রণ তৈরি করতে পারেন ফেস মাস্ক যা আপনার শুষ্ক ত্বকের ক্ষেত্রে খুব উপকারী ও হবে।

৩) ছেলেদের মুখের ত্বক

ছেলে বলে মুখে ফেস মাস্ক ব্যবহার করা যাবে না এরকম কথা তো কোথাও নেই। আজকাল অনেক পুরুষই তাদের মুখের জেলাস ফেরাতে আর ব্রণ এড়িয়ে চলতে ফেসবুক ব্যবহার করে থাকেন। ছেলেদের ক্ষেত্রে মুখের ত্বক একটু রুক্ষ হয় তাই এর জন্য রয়েছে আলাদা রকমের ফেস মাস্ক ব্যবহারের পদ্ধতি। ডিমের হলুদ অংশ টা ছেলেদের ক্ষেত্রে ফেস ওয়াশ হিসেবে খুব কার্যকরী। ডিমের হলুদ অংশটা বের করে তাতে অল্প ময়দা গুলে মুখের উপর প্রয়োগ করতে হয়। 20 থেকে 30 মিনিট মুখে রেখে ভালো পরিষ্কার পানি দিয়ে ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে । দেখা যাবে মুখের মৃত কোষ ব্রন ও তৈলাক্ত ভাব আর নেই। ডিমের হলুদ অংশের মাস্কের ছেলেরা ব্যবহার করতে পারলে অ্যালোভেরা মারকস মুলতানি মাটির মাস্ক ইত্যাদি।