বৈশাখী রোদে পোড়া ত্বক থেকে বাঁচতে পাঁচটি কার্যকরী প্যাক
বৈশাখী রোদে পোড়া ত্বক থেকে বাঁচতে পাঁচটি কার্যকরী প্যাক

লাল সাদা শাড়ির সাথে ছোট একটা হাতে আঁকা লাল টিপ আর দুই হাত ভর্তি লাল চুড়ি। চলে থাকবে একগুচ্ছ বেলি ফুল, বেশ এই হবে বৈশাখের সাজ। বৈশাখে প্রথম দিনটিকে বরণ করার জন্য এমন সাজে চিন্তা করে রেখেছে তুলি। বৈশাখ উপলক্ষে কেন লাল সাদা শাড়ির তার সাথে নিজে ডিজাইন করে ব্লাউজ বানিয়েছে। ছোট হাতা ব্লাউজ এর চারপাশের লেস লাগানো আর লাল ব্লাউজ এর সাদা লেজ বেশ মানিয়ে গেছে। ব্লাউসটাও দেখতে দারুন হয়েছে কিন্তু ব্লাউজ বানানোর পর থেকে তুলির মাথায় এক চিন্তা ঘুরপাক খাচ্ছে। বৈশাখের সারাদিন রোদে ঘোরাঘুরি করে হাতটা না আবার পুড়ে যায়। বৈশাখে সব ভালো লাগে তুলির শুধু রোদ টাকে ছাড়া । তুলি আবার সেন্সিতিভ স্কিন তাই রুট একদমই সহ্য করতে পারে না। তাইতো রোদে গেলে ত্বক দ্রুত পুড়ে কালো হয়ে যায়। বৈশাখী রোদে পোড়া ত্বক নিয়ে সমস্যা শুধু তুলির নয় অনেকেই এই সমস্যায় পড়েন।

আর এই বৈশাখে এই সমস্যাটা আরও বেশি হয়ে থাকে। এই বৈশাখে রোদে পোড়া ত্বক নিয়ে সমস্যা দুশ্চিন্তা দূর করে রোদে ঘোরাঘুরি করুন একদম নিশ্চিন্তে। রোদে হাত পা ঘাড় ও মুখ পুড়ে গেলেও তা সারিয়ে নেওয়া যাবে খুব সহজেই ঘরোয়া কিছু উপায়। এই প্যাকগুলো ত্বকের রোদে পোড়া ভাব দূর করে উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করবে।

বৈশাখী রোদে পোড়া ত্বক ঠিক করার প্যাক

১) লেবুর রস

হাত পা ঘাড় ও মুখের রোদে পোড়া দাগ দূর করতে সস্তা ও কার্যকরী একটি উপাদান হলো লেবু। লেবুর এসিডিক উপাদান ব্লেচিং হিসাবে হিসেবে কাজ করে। লেবুতে থাকা ভিটামিন সি ত্বকের মৃতকোষ দূর করে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে থাকে। একটি নতুন কোষ তৈরি করতে এবং ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি করে থাকে।

একটি অর্ধেক লেবুর উপর চিনি ছিটিয়ে নিন। এটি হাত-পা ও ঘাড়ে ঘষুন। ১০ মিনিট রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। বাইরে থেকে ফিরে হাত পা ও ঘাড় ভালো করে ধুয়ে এই প্যাকেজটি ব্যবহার করুন। এছাড়া এটি সপ্তাহে 1 বার ব্যবহার করতে পারেন। তবে লেবু ব্যবহারের পর এক থেকে দুই ঘন্টা সরাসরি সূর্য রশ্মির সংস্পর্শে যাওয়া এড়িয়ে চলুন।

২) টক দই

টক দইতে থাকে ল্যাকটিক অ্যাসিড ব্লিচিং হিসেবে কাজ করে থাকে। এটি ত্বকের মৃতকোষ দূর করে ত্বকের কালো দাগ দূর করতে সাহায্য করে। টক দইতে থাকে প্রোটিন ও ভিটামিন ত্বক নরম করে থাকে।

এছাড়াও সব পরিমাণে টকদই গোলাপজল এবং 1 চা চামচ গ্লিসারিন একসাথে মিশিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। এই মিশ্রণটি হাত ও পায়ে ব্যবহার করুন। বিশেষ করে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ব্যবহার করতে পারেন। পরের দিন সকালে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি প্রতিদিন ব্যবহার করুন।

৩) অ্যালোভেরা জেল

অ্যালোভেরা জেল আপনার ত্বকে আসলে স্কিনটোন’ ফিরে পেতে সাহায্য করতে পারে এছাড়াও এতে স্কিন মশ্চারাইজার থাকে বলে প্রাকৃতিক ত্বককে ভাবে উজ্জ্বল হতে সাহায্য করে।

অ্যালোভেরা পাতা থেকে জেল বের করে নিয়ে আপনার হাত পা ঘাড় ও মুখে লাগিয়ে 5 মিনিট ঘষুন। 30 মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের কালচে ভাব দূর করতে দিনে দুইবার এটি ব্যবহার করুন।

এছাড়া 2 টেবিল চামচ এলোভেরা জেল এবং কয়েক ফোঁটা আমন্ড অয়েল দিয়ে ক্রিম তৈরি করে নিন। এই মিশ্রণটি হাত পা ঘাড় ও মুখের ম্যাসাজ করুন। এটি 15 থেকে 20 মিনিট রাখুন।তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই মিশ্রণটি দিনে দুইবার ব্যবহার করতে পারেন।

৪) টমেটো

টমেটোতে ব্লিচিং উপাদান রয়েছে যা ত্বকে উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। টমেটোতে লাইকোপেন নামক অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে যা ক্ষতিগ্রস্ত ত্বককে সারিয়ে তোলে।

এক টুকরো টমেটো নিয়ে হাত পা ঘাড় ও মুখের রোদে পোড়া জায়গায় 2 থেকে 3 মিনিটের মধ্যে মাসাজ করুন। এটি শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

সম পরিমাণে লেবুর রস এবং টমেটোর রস মিশিয়ে নিন। এটি ত্বকের উপর মেসেজ করে লাগান। 10 বা 15 মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দিনে একবার দুইবার ব্যবহার করুন।

৫) হলুদ

হলুদে কারকিউমিন নামক অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে যা ত্বকের মেলানিন কমাতে সাহায্য করে এবং ত্বকের রঙ ফিরিয়ে নিয়ে আসে। এটি ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

2 চা-চামচ হলুদের গুঁড়া ঠান্ডা দুধের সাথে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এই মিশ্রণটি হাত পা ঘাড় ও মুখে ম্যাসাজ করে লাগান। এভাবে তোকে 20 মিনিট রাখুন। শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি দিনে এক বা দুইবার ব্যবহার করুন।

2 চা চামচ হলুদের গুঁড়ো এবং অলিভ অয়েল মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই মিশ্রণটি হাত এবং পা এলাগান।10 মিনিট পর শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

হলুদের প্যাক ব্যবহার করার পর সূর্যের আলোতে যাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

এই তো আপনারা জেনে গেলেন বৈশাখের রোদে পোড়া ত্বক নিয়ে সমস্যা থেকে মুক্তির উপায়। পহেলা বৈশাখে ঘুরে বেড়ান নির্ভাবনায় সবাইকে বৈশাখের শুভেচ্ছা রইল।

লেখক: কারিমা আক্তার তুলি